Quantcast
Ads by Techtunes - tAds

হারিয়ে যেতে বসেছে Tilt-Shift ফটোগ্রাফি !!!

0 টিউমেন্টস 192 দেখা প্রিয়

কেমন আছেন বন্ধুরা? আশা করি ভালো। আজ কথা বলবো টিল্ট শিফ্‌ট (Tilt-Shift) ফটোগ্রাফি নিয়ে। অনেকে হয়তো অবাক হচ্ছেন। কারণ, এতদিন শুধু শুনে এসেছেন 'ফটোগ্রাফি' শব্দটাই। তাই টিল্ট শিফ্‌ট শব্দটা আপনাদের কাছে অপরিচিতই মনে হতে পারে। আর প্রযুক্তির উন্নতিতে টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি হারিয়েও যাচ্ছে দিন দিন।

কিন্তু কোনো ব্যাপার না। আজকে আপনাদের সে বিষয়েই জানাবো। আপাতত এতটুকু মাথায় রাখুন যে টিল্ট শিফট হলো গরীবের ফটোগ্রাফি। আর প্রাচীন একটি ফটোগ্রাফি যখন বাজার এত ডি এস এল আর-এ ভরপুর ছিল না। এখনও যারা দামী ক্যামেরা ব্যবহার করতে পারেন না, তারা টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি করে থাকেন। এটা ফটোগ্রাফি'রই একটা অংশ। তবে দুঃখের বিষয় হলো বর্তমানে ফটোগ্রাফির এই প্রজাতিটি হারিয়ে যেতে বসেছে।

টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি কী?

আচ্ছা, উপরের টিউন থাম্বনেইলটা দেখে কি কোনো ধারণা পাচ্ছেন যে টিল্ট শিফট ফটোগ্রাফি কী হতে পারে? অনেকেই পাচ্ছেন। আবার অনেকেই পাচ্ছেন না। আচ্ছা, ফটোটি আবার দেখুন তো।

প্রথমে বলুন কী দেখতে পাচ্ছেন? ফটোটা কেমন না? উপরে আর নিচে ঘোলা বা ব্লার। তাও আবার কেমন কেমন জায়গায় যেন ঘোলা। সোজা আবার কোনাকুনি। হ্যাঁ, এইটাই টিল্ট শিফট ফটোগ্রাফি। আর কিছু কিছু জায়গায় এরকম ব্লার করার অর্থ হলো আপনার চোখকে নির্দিষ্ট জায়গার দিকে ফোকাস করা।

মানে আপনি কোথায় তাকাবেন সেটা ঠিক করে দেয়া। উপরের ফটো দেখে আপনি নিঃসন্দেহে প্রথমে মাঝখানের বাড়িটার দিকে তাকাবেন। আর এটা করবেন একটা কারণেই যে আপনাকে বিভিন্ন অংশ ঘোলা করার মাধ্যমে নির্দেশ দেয়া হয়েছে যে ঘোলা অংশে তাকাবেন না। বিষয়টি নিচের উদাহরণ থেকে পরিষ্কার হবেন।

উপরের চিত্রের মাঝের সবুজ বৃত্তের দিকে তাকিয়ে থাকুন অর্থাৎ সবুজ বৃত্তে চোখটা স্থির করুন অন্য কোনোদিকে তাকাবেন না। আপনি আসলে কী পর্যবেক্ষণ করছেন বলুন তো।

হ্যাঁ। আপনি বুঝতে পারছেন আপনার ডানদিকে একটা নীল রঙের কিছু একটা আছে। মাঝের সবুজ বৃত্তের কারণে আপনার মনে হচ্ছে ডানপাশের নীল রঙের বস্তুটি গোল। আরো কিছু আছে।

আপনি এটাও দেখতে পাচ্ছেন যে ডানপাশের নীল বৃত্তের নিচে একটি কমলা রঙের লেখা আছে। কিন্তু মাঝের সবুজ বৃত্তের দিকে তাকানো থাকা অবস্থায় আপনি বুঝতে পারছেন না যে নীল বৃত্তের নিচে ঠিক কী লেখা আছে। তবে মনে হচ্ছে যে কিছু একটা লেখা আছে। একইভাবে লাল রঙের বস্তুও একইরকম মনে হবে। এ থেকে কী বুঝলেন?

এ থেকে এটাই বোঝা যায় যে, আপনার চোখ যেটাতে থাকবে, সেটি আপনি স্পষ্ট দেখতে পাবেন। এর বাইরে আশেপাশের বস্তুটি আপনি স্পষ্ট দেখতে পারবেন না। আর তাই কোনো ফটোতে কিছু অংশ ঘোলা করে দিলে আপনার ফটো'র মূল বস্তুটা দেখতে সুবিধা হয়।

ডি এস এল আর-এর যুগে এখন আর তেমন কেউ টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি করতে চান না। ডেপ্‌থ অব ফিল্ডের খেলা এখন সবখানে। তবে টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি আজও একটি কারণে টিকে আছে। আর তা হলো 'মিনিয়েচার ফেইকিং'। আসুন জেনে নেয়া যাক সেটা কী।

মিনিয়েচার ফেইকিং(Miniature Faking)

'মিনিয়েচার' শব্দটা শুনেই হয়তো বুঝতে পারছেন কাজটা কী। হ্যাঁ। দূর থেকে তোলা সেইসব ফটোগ্রাফি যেগুলোর কিছু অংশ ঘোলা করলে ফটো'র ভিতরকার সাবজেক্টগুলোকে কোনো ক্ষুদ্র জগতের মতো মনে হয় সেটাই হলো মিনিয়েচার ফেইকিং।

সাধারণত এটা অনেক দূর থেকে তুলতে হয়। যেমন, পাহাড়ের উপর থেকে, বড় কোনো গাছ থেকে, বড় কোনো টাওয়ার থেকে ইত্যাদি। তবে ঘোলা করলেই যে একটা ফটো মিনিয়েচার ফেইকিং-এ রুপ নেবে না বলা যায় না। এটার জন্য দরকাল কিছু কৌশল যা আসে দীর্ঘদিনের ছবি তোলার অভ্যাস থেকে।

সবচেয়ে দুঃখজনক ব্যাপার হলো এই যে আমরা বর্তমানে অনেক ফটো'তেই এরকম আংশিক ঘোলা করে থাকি। কিন্তু বেশিরভাগই জানি না যে এটাও ফটোগ্রাফির একটা অংশ। ডি এস এল আর-এ ধাঁধা লেগে যাওয়া চোখ দিয়ে এসব ফটো দেখলে আমরা ফটো ইডিটিং-এর অদক্ষতা হিসেবে বিবেচনা করি। এর কারণ হলো প্রযুক্তির সাথে সাথে আমাদের জ্ঞান ও মন এগিয়ে যাচ্ছে না।

এবার আসুন জেনে নিই কীভাবে আপনি এই টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি করতে পারেন সে সম্পর্কে। এখন অবশ্য তেমন কিছুই দরকার নেই। শুধু একটা অ্যান্ড্রয়েট বা স্মার্টফোন হাতে থাকলেই যে কেউই টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি করতে পারেন। নিচে সে সমস্ত কিছু কৌশল নিয়েই আলোচনা করছি।

১। সাইট ব্যবহার করে

এটা প্রথম দিকে খুবই ব্যবহৃত হতো। কারণ, তখন এখনকার মতো এত অ্যাপ্‌স বা সফটওয়্যার সহজলভ্য ছিল না। আর থাকলেও খুব কম। আর ব্যবহার না জানার কারণে মানুষজন বিভিন্ন ওয়েবসাইটের সাহায্য নিতো। গুগলে 'Online Tilt Shift Photo Maker' লিখে সার্চ দিলে  TiltShift Maker-এর মতো অসংখ্য ওয়েবসাইট পাবেন।

২। ফিল্টার অ্যাপের মাধ্যমে

যারা অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করে থাকেন তাদেরকে আর  নতুন করে কিছু বলার নেই। কারণ, যেকোনো ফটো ইডিটিং অ্যাপ (YouCam, Cymera, Candy Camera, Facey Camera) আপনার কাছে আছে পর্যাপ্ত পরিমাণে। প্রায় সব ধরনের ফিল্টার অ্যাপ দিয়েই আপনি টিল্ট শিফ্‌ট ফটোগ্রাফি করতে পারেন।

৩। ফটোশপ-এর মাধ্যমে

যারা যারা অ্যাডোবি ফটোশপ ব্যবহার করেন তারা এই কাজটি খুব সহজে ও কম সময়ের মধ্যেই করতে পারবেন। Marquee Tool, Magic Wand Tool, Pen Tool ইত্যাদির মাধ্যমে।

শুধু ডি এস এল আর দিয়ে ফটো তুললেই সেটা ফটোগ্রাফি হয়ে যায় না। ফটোগ্রাফির এই বিষয়গুলোর সাথেও পরিচিত হতে হয়। কারণ, ডিজিটাল ক্যামেরাগুলো এমনিতেই ফটো'র সৌন্দর্য বর্ধনে ব্যাপক ভূমিকা রাখে। আর সেটাকে নিজের দক্ষতায় সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়াটাই হলো ফটোগ্রাফি'আর আসল কাজ। সেই সাথে বুঝতে হবে ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে ফটোগ্রাফি'র এইসব বিষয়গুলোতে। ভাল ফটো এখন কেউ আর তোলেই না।

পরিশেষে, টেকটিউনস হলো বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কে জানার এক সুবিশাল প্ল্যাটফর্ম। শুধু জেনেই বসে থাকবেন না। এই জ্ঞানগুলো ছড়িয়ে দিন তাদের নিকট যাদের কাছে এই টিউনগুলো পৌঁছানো সম্ভব হয় না। প্রযুক্তিকে ভালবাসুন, প্রযুক্তির সাথে থাকুন। টেকটিউনসের সাথে থাকুন।

আজকের মতো এ পর্যন্তই। সামনে আবারও হাজির হবো নতুন কোনো তথ্য নিয়ে। আর টিউনটি কেমন লাগলো জানাতে ভুলবেন না। টিউন বিষয়ে কোনো প্রশ্ন থাকলে নিচে টিউমেন্ট বক্সে প্রশ্নটি করুন। এছাড়াও ফেইসবুকে আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

ফেইসবুকে আমি: Mamun Mehedee

Ads by Techtunes - tAds
টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো

You must be logged in to post a Tumment.