Quantcast
Ads by Techtunes - tAds

প্রফেশনালদের মত আপনার Vlog চালাতে পারবেন এখন আপনার মোবাইল দিয়েই

0 টিউমেন্টস 349 দেখা প্রিয়

আস সালামু আলাইকুম, আশা করি সবাই ভাল আছেন। সুস্থতা আল্লাহর অশেষ বড় নেয়ামত। তাই যদি ভাল থেকে থাকেন তাহলে এখনই অন্তত একবার আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করে নিন। যে অসুস্থ সে ই বুঝে অসুস্থতার কি জ্বালা। যাই হোক প্রতিদিনের মত আজও আপনাদের সাথে শেয়ার করতে এলাম এমন এক বিষয় যা আপনাদের অনেকেরই হয়ত অজানা। সব সময় আপনাদেরকে এডভান্সড রাখার জন্য নিয়ে আসি নতুন নতুন সব টিউন। আপনাদের উপকার হলে অবশ্যই টিউমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। আর ফেসবুকে শেয়ার করে সবাইকে জানিয়ে দিবেন।

তো আমার মনে হয় ৫০% মানুষ Vlog কথাটার অর্থ বুঝেন নাই। জানি না। এটা আমার ধারণা। কারণ বাংলাদেশের এখনও কিছু মানুষ খুজলে পাওয়া যাবে যারা টেকটিউনস কে টিটি বললে  চিনে না। তবে সেটা সংখ্যায় খুবই নগন্য। কিন্তু আমি সিউর ৫০% মানুষ Vlog সম্পর্কে জানে না।

কি আপনিও জানেন না?? vlog কি? হা হা হা। সবাই জানে কিন্তু কথাটা সংক্ষেপে বলায় অনেকেই সেটা বুঝতে পারে না। Vlog হচ্ছে ভিডিও ব্লগ। যে সকল ব্লগে লেখার পরিবর্তে ভিডিও কে অগ্রাধিকার দেয়া হয়। মানে ভিডিও থাকবে সাথে লেখাও লিখতে হবে। এরকম ব্লগকেই ভিডীও ব্লগ বলা হয়। যেমন mashable একটি ভিডিও ব্লগ।

কিন্তু একটা ভিডীও ব্লগ চালাতে গেলে কি দরকার? আপনার একটা ভাল ভিডিও ক্যামেরা যার মাধ্যমে হাই কোয়ালিটির ভিডিও হবে। কারণ ভিডিও কোয়ালিটি ভাল না হলে মানুষ দেখবে না। কিন্তু ভিডীও ক্যামেরার যে দাম, সেটা অনেকের পক্ষেই কেনা সম্ভব না। সবার একটা ভিডিও ব্লগের আশা থাকাটা কিন্তু অস্বাভাবিক কিছু না।

কিন্তু সামর্থ্য বলতে একটা কথা আছে। তবে হ্যা এটা মানতে হবে যে, ভিডীও ব্লগ চালাতে হলে অবশ্যই কিছু খরচ করতে হবে। নাহলে আপনি সেটা চালাতে পারবেন না। আপনার ভাল ভিডিও ক্যামেরা না থাকতে পারে কিন্তু  আপনার মোটামুটি ভাল একটা ফোন থাকতে হবে। তবে ফোনের ভিডীও কোয়ালিটি ভিডীও ব্লগ চালানোর জন্য সম্পুর্ণ উপযোগী নয়।

এখন কি করবেন??ভিডীও ব্লগের আশা ছেড়ে দিবেন? নাহ। সেটা করার দরকার হবে না। তো তাই আজ আমি আপনাদের সামনে এই টিউন এ হাজির হলাম, কিভাবে আপনার ফোন দিয়েই প্রফেশনালদের মত ভিডীও ব্লগ চালাতে পারেন সেই বিষয়টি নিয়ে।

ভিডীও ব্লগিং যেহেতু ভিডিও চ্যাটিং নয় সেহেতু আপনাকে অবশ্যই ভিডীও টি হরিজন্টালি করতে হবে।

মানে ভার্টিক্যালি বা মোবাইল সোজাভাবে ধরে ভিডীও করা যাবে না। ভিডীও করতে হবে কাত করে। নিচের ছবি টি লক্ষ করুন

অবশ্যই একটা চশমা ব্যবহার করুন

অবশ্যই একটা চশমা ব্যবহার করুন। অবশ্যই কালো হলে ভালো। যেটায় আপনার চোখকে দেখা যাবে না। কারণ মোবাইল দিয়ে যখন আপন নিজেই নিজের ভিডিও করবেন করবেন তখন সব সময় আপনাকে ঐ মোবাইলের ছোট ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। তাই আপনার মোড ঠিক থাকবে না। মানে হয়ত খারাপ দেখাতে পারে। আর ফ্ল্যাশ লাইট অন থাকলে চোখের ভিতর সেটার আলো পড়ে। তাই খারাপ দেখায় অনেক সময়। তাই চশমা ব্যবহার করুন।

নড়াচড়া বন্ধ করতে gorilla pod ব্যবহার করুন

আপনার মোবাইল ধরে রাখতে রাখতে দেখবেন অনেক সময় হাত ব্যথা হয়ে গেছে। তখন আর ধরে রাখতে পারবেন না। তাছাড়া আপনার হাতে ফোন থাকলে ক্যামেরা অনেক নড়াচড়া হতে পারে। আর ভিডিও নাড়া চাড়া করলে আপনার ভিডিও আপনারই দেখতে ভাল লাগবে না। তাই gorilla pod এর মত কোনো ভিডিও স্টাবিলাইজ স্ট্যান্ড ব্যবহার করুন।

gorilla pod এর দাম ৩৫ডলার। তাই বলেছি যদি ওইটার মত কোনো স্ট্যান্ড কম দামে পান তাহলে সেটা ব্যবহার করুন। অথবা গরিলা পড ই ব্যবহার করুন।

নিজের স্টাইলকে প্রধান্য দিন

অতিরিক্ত স্টাইল না করে নিজের স্টাইলকেই প্রাধান্য দিন। কারণ অন্যের স্টাইল ফলো করতে গিয়ে আপনি হয়ত সেরকম তো পারবেন ই না। আরও সবার জন্য হাসির পাত্র হবেন। সাইডশট নিয়ে ভিডিও করুন

আপনার ভিডীও এরিয়াকে বাড়িয়ে নিন লেন্সের মাধ্যমে

ক্যামেরা কিনেন নি সেটা ঠিক আছে। কিন্তু আপনি তো জানেন যে, মোবাইলের ফ্রন্ট ক্যামেরায় আর কতটুকু এড়িয়া দেখা যায়? তাই আপনার উচিত হচ্ছে এর এরিয়া বাড়ানোর জন্য ক্যামেরার সাথে একটা লেন্স ব্যবহার করা। মার্কেটে গেলে অনেক ধরণের লেন্স পাবেন আপনার সামর্থের মধ্যে যেটা পড়ে সেটা কিনে নিন। olloclip cliper kid চাইলে কিনতে পারেন। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ধরণের লেন্স ব্যবহার করুন।

bs pro 3-way selfie stick ব্যবহার করুন

এটা আপনাকে ৩টি ভিন্ন উপায় সেলফি তোলার সুযোগ দিবে। তাই আপনি চাইলে এটি ব্যবহার করতে পারেন। মূল্য ৭০ডলার।

যেকোনো পরিবেশে বা রাতে ভিডিও করা জন্য মোবাইলের ফ্লাশের সাথে ছোট led লাইট ব্যবহার করুন

আপনার মোবাইলের ফ্ল্যাশ লাইট অনেক সময়ই ভিডীও করার জন্য উপযুক্ত নয়। সেক্ষেতের মোবাইলের সাথে একটি ছোট লাইট ব্যভার করুন যা আপনাকে আলো দিয়ে সাহায্য করবে।

অবশ্যই কিছুটা ভিডিও ইডিটিং শিখতে হবে

মানুষকে আপনার ভিডিও দিয়ে আকৃষ্ট করতে হলে অবশ্যই কিছুটা ভিডীও ইডিটীং জানতে হবে।তো যাদের কম্পিউটার আছে তারা তো সহজেই ভিডীও ইডিটীং করতে পারবেন। কিন্তু যাদের নেই তারা কি করবেন? আইফোনের জন্য সবচেয়ে ভাল ভিডীও ইডীটর হচ্ছে imov আর এন্ড্রয়েডের জন্য সবচেয়ে ভাল ভিডিও ইডিটর হচ্ছে go pro.

যাই হোক, একদিনে তো আর সব কিছু বলা সম্ভব না। তাই আজকের মত এই পর্যন্তই। তবে যারা ভিডীও ব্লগিং এর আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন আশা করি এই টিউন পড়ার পর আবার আগ্রহ ফিরে পেয়েছেন তাই না?

তো ভাল লাগলে অবশ্যই ভিডীও টি শেয়ার করুন। টিউমেন্ট করে অবশ্যি জানাবেন কেমন লেগেছে আজকের টিউন। অথবা পরবর্তিতে কেমন টিউন আশা করেন।

তো আজকের মত এ পর্যন্তই। দেখা হবে ইনশাআল্লাহ পরের টিউনে শিগ্রই। ততক্ষন পর্যন্ত ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন, প্রযুক্তিকে ভালবাসুন। আর প্রযুক্তির সাথেই থাকুন।

আল্লাহ হাফিজ।

Ads by Techtunes - tAds
টিউনার সৌশল মিডিয়া
Ads by Techtunes - tAds
টিউমেন্টস টিউমেন্ট গুলো

You must be logged in to post a Tumment.